কম্পিউটার-মোবাইল থেকে চোখ বাঁচাবেন যেভাবে

সারাদিন বিভিন্ন কাজের জন্য চোখ রাখতে হয় কম্পিউটার ও মোবাইলে। আর এর জন্য চোখের ওপর অনেক চাপ পড়ে। তাই নিতে হবে চোখের যত্ন। আসুন জেনে নিই কীভাবে চোখের যত্ন নেবেন-

নির্দিষ্ট দূরত্ব রক্ষা: বিশেষজ্ঞদের মতে, কম্পিউটারের পর্দা থেকে চোখের ব্যবধান হতে হবে অন্তত ২৫ ইঞ্চি। এর থেকে কম দূরত্বে চোখের উপর অতিরিক্ত চাপ পড়ে। বিশেষত দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করলে অনেকটাই বাড়ে সমস্যা। পাশাপাশি, চোখের থেকে কম্পিউটারের পর্দা একটু নীচে রাখতে হবে।

২০-২০ নিয়ম: শরীর সুস্থ রাখতে যেমন নিয়মিত শরীরচর্চার প্রয়োজন তেমনই চোখ ভাল রাখতেও করতে হবে চোখের ব্যায়াম। এই ক্ষেত্রে মেনে চলতে পারেন ২০-২০ নিয়ম। এই নিয়ম অনুসারে ২০মিনিট একটানা পর্দার দিকে তাকিয়ে থাকার পর অন্তত ২০ সেকেন্ড ২০ ফুট দূরত্বের কোনো বস্তুর দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে। পাশাপাশি, বারবার চোখের পলক ফেলাও জরুরি।

পর্যাপ্ত আলো: চোখ ভালো রাখতে কম্পিউটারের আলোর সমন্বয় করে নিতে হবে। অতিরিক্ত ছোট স্ক্রিন ও অস্বাভাবিক আলো চোখের উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। পাশাপাশি, পর্দার অক্ষরও বড় মাপের হওয়া বাঞ্ছনীয়। পর্যাপ্ত আলো রয়েছে এমন স্থানে রাখতে হবে কম্পিউটার বা ল্যাপটপ।

পর্যাপ্ত পানি পান করুন: দীর্ঘ ক্ষণ কম্পিউটারের পর্দায় একটানা তাকিয়ে থাকলে দেখা দিতে পারে ‘কম্পিউটার ভিশন সিনড্রোম’। কম্পিউটার বা ল্যাপটপের পর্দা যেহেতু দ্রুত পরিবর্তিত হয়, তাই বারবার কেন্দ্রিভূত করতে হয় দৃষ্টি। এতে চোখের পেশী ও স্নায়ুর উপর চাপ পড়ে। এক ভাবে পর্দার দিকে তাকিয়ে থাকলে কমে চোখের পলক পড়ার সংখ্যা। ফলে দ্রুত শুকিয়ে যায় চোখ। তাই নিয়মিত চোখে পানির ঝাপটা দেওয়া ও নিয়মিত পানি পান করা অত্যন্ত জরুরি।

সবুজ শাকসবজি: প্রচুর পরিমাণে সবুজ শাকসবজি, বাদাম, কমলালেবু খেতে পারেন। এসব খাবার চোখের কর্নিয়া ভালো রাখে।

চক্ষু পরীক্ষা: যারা নিয়মিত কম্পিউটার বা ল্যাপটপে কাজ করেন, তাঁদের নিয়মিত চোখ পরীক্ষা করাতে হবে। চোখ পরীক্ষা পুরো শরীর পরীক্ষার মতো গুরুত্বপূর্ণ। স্ট্রোক, ডায়াবেটিস, টিউমারের মতো সমস্যাগুলো চোখ পরীক্ষার মাধ্যমে নির্ণয় করা যেতে পারে।

গ্লাস ব্যবহার করুন: চোখের জন্য কম্পিউটার গ্লাস ব্যবহার করতে হবে। কম্পিউটার গ্লাসের ব্যবহারে ঘাড়, পিঠ, চোখ সুরক্ষিত থাকে। অ্যান্টি গ্লেয়ার কোটিং কম্পিউটার থেকে নির্গত আলো থেকে সুরক্ষা দেয়। তবে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কম্পিউটার গ্লাস ব্যবহার করা উচিত নয়। সৌজন্যেঃ দৈনিক ইত্তেফাক