তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিঃ অষ্টম শ্রেনি

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিঃ

শ্রেনিঃ অষ্টম, অধ্যায়ঃ প্রথম

প্রশ্নঃ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির গুরুত্ব ব্যাখ্যা করঃ

উত্তর : আধুনিক জীবনযাপনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির গুরুত্ব অপরিসীম। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মানুষের জীবনকে করেছে উন্নত, জীবনযাত্রাকে করছে সহজ, সরল ও অত্যাধুনিক। তথ্যপ্রযুক্তি মূলত একটি সমন্বিত মাধ্যম, যা অডিও, ভিডিও, টেলিযোগাযোগ, কম্পিউটিং, সম্প্রচারসহ আরো বহুবিধ প্রযুক্তির সম্মিলনে দীর্ঘদিন ধরে চর্চার ফলে প্রতিনিয়ত সমৃদ্ধি লাভ করছে। তথ্য প্রযুক্তির বিপুল বিকাশের ফলে সমাজের বিভিন্ন স্তরে নানা ধরনের পরিবর্তন সূচিত হচ্ছে। এর ফলে অসংখ্য নতুন নতুন কাজের ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে। তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে শিক্ষা, চিকিৎসা, গবেষণা, যোগাযোগ, ব্যবসা-বাণিজ্য, বিনোদনসহ নানা ধরনের সেবা পাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে মোবাইল ফোনের ব্যাপক প্রসারের ফলে প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের সঙ্গে সারা বিশ্বের যোগাযোগ করার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। ইন্টারনেট, ই-মেইলের মাধ্যমে সারা পৃথিবীর মানুষ আজ একে অন্যের সঙ্গে তাৎক্ষণিক যোগাযোগ করতে পারছে। ইন্টারনেটের বিকাশের ফলে বর্তমানে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোর জনগণ ঘরে বসে অন্য দেশের কাজ করে আত্মকর্মসংস্থানে সক্ষম হচ্ছে। বর্তমানে শিক্ষাব্যবস্থায় তথ্য প্রযুক্তির কল্যাণে শ্রেণি কক্ষে পাঠদান থেকে শুরু করে ফরম ফিলআপ, ফলাফল প্রকাশ ইত্যাদি নানা শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। চাকরি, ব্যবসা-বাণিজ্যেও প্রযুক্তির ব্যবহার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর ফলে চাকরিদাতা ও প্রার্থী অনলাইনে খুব সহজে যোগাযোগ করতে পারছে। অনলাইনের মাধ্যমে পণ্যের প্রচার এবং বিক্রিও এখন দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। সরকারি কর্মকাণ্ডে তথ্যপ্রযুক্তি সবচেয়ে উদ্ভাবনী ও কুশলী প্রয়োগ হলো জনগণের কাছে নাগরিক সেবা পৌঁছে দেওয়া। মোবাইল ফোন, রেডিও, টেলিভিশন ও ইন্টারনেটের মাধ্যমে নাগরিক সেবাগুলো সরাসরি নাগরিকদের দোরগোড়ায় এবং তার হাতের মুঠোয় পৌঁছে দেওয়া যায়। চিকিৎসা ক্ষেত্রে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে রোগীর রোগ নির্ণয় করা সহজ হয়েছে। টেলি মেডিসিনের মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা এখন আরো সময় সাশ্রয়ী ও সহজতর হয়েছে। তথ্য প্রযুক্তির কারণে গবেষণাজগতে সম্পূর্ণ নতুন একটি মাত্রা যোগ হয়েছে। মানুষ এখন সাহিত্য, শিল্প, গণিত, প্রযুক্তি আর বিজ্ঞান, যা নিয়েই গবেষণা করুক না কেন, তারা কম্পিউটার এবং তথ্য প্রযুক্তির সাহায্য ছাড়া সেই গবেষণার কথা চিন্তা করতে পারে না।

উপরোক্ত আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে এটাই প্রতীয়মান হয় যে, মানুষের জীবনযাত্রাকে সহজ করতে, মানবজাতির কল্যাণে এবং উন্নয়নে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির গুরুত্ব অপরিসীম এবং প্রতিনিয়ত তা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.