জি-মেইল একাউন্ট খোলার সহজ পদ্ধতি

আমরা  সকলেই জানি, আমাদের দৈনন্দিন জীবনে ই-মেইল আইডি  কতটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বর্তমান সময়ে অনলাইনের যে কোন কাজে আমাদের একটি ই-মেইল আইডির প্রয়োজন হয়। আপনি অনলাইনে টাকা আয় করার কথা ভাবছেন, অনলাইন শপিং করার কথা ভাবছেন, facebook সহ যেকোন সামাজিক যোগাযোগের একাউন্ট খোলার কথা ভাবছেন বা চাকরির জন্য বায়োডাটা দেয়ার কথা ভাবছেন, সবখানেই, আপনার একটি ই-মেইল একাউন্ট দেওয়ার প্রয়োজন হবে। যদি আপনি এখনো নিজের একটি ই-মেইল একাউন্ট খোলেননি, তাহলে চিন্তা করবেন না।  আজকে  আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করব কিভাবে খুব সহজে একটি ই-মেইল একাউন্ট  খোলা যায়।

এখানে উল্লেখ Googe accountকে সাধারণত আমরা জি-মেইল একাউন্ট বলে থাকি। একটা কথা অবশ্যই মনে রাখবেন g-mail account এবং google account দুটোই এক জিনিস। তাই, অনেকে যারা google account কিভাবে বানাবো ভাবছেন, তারা মনে রাখবেন যে একটি জি-মেইল আইডি বানানো মানেই গুগল আইডি বানানো। জি-মেইল গুগলের একটি product আর তাই গুগল বা জি-মেইল একাউন্ট দুটো একই জিনিস।

এছাড়া, ই-মেইল আইডি বানানোর জন্য জি-মেইল ছাড়া hotmail বা yahoo অনেকে বানিয়ে নিতে পারবেন। কিন্তু, যেহেতু Gmail ID গুগলের একটি product তাই আমাদের android মোবাইলে gmail আইডির প্রয়োজন পরে। Gmail এর দ্বারা বানানো ই-মেইল আইডি আপনি সব রকমের কাজে সব সময় ব্যবহার করতে পারবেন।

একটি জি-মেইল একাউন্ট (gmail account) কিভাবে খুলবেন ?

জিমেইলে ডট কমে একটি জি-মেইল একাউন্ট খোলার জন্য আপনার একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ অথবা মোবাইল ফোন, মোবাইল নম্বর এবং ইন্টারনেট কানেকশনের দরকার হবে। এমনিতে আপনি  মোবাইল নাম্বার ছাড়া জি-মেইলে একাউন্ট বানাতে পারবেন। কিন্তু, মোবাইল নাম্বার ছাড়া আইডি বানালে একটি সমস্যা হতে পারে। যদি আপনার কোন সময়  জি-মেইলের password ভুলে যান, তখন নতুন পাসওয়ার্ড পাওয়াতে আপনার জন্য অনেক কষ্ট হতে পারে। তাই নতুন জি-মেইল আইডি বানানোর সময় নিজের মোবাইল নাম্বার দেওয়াটা অনেক জরুরি।

স্টেপ-১  

Google mail এ Gemail id খোলার জন্য প্রথমে  আপনাকে  জি-মেইল  এর official website   www.gmail.com  এ যেতে  হবে, জিমেইল ডট কম এ  যাওয়ার  পরে  create an account এ click করতে  হবে।

স্টেপ-২

Create account এ click করার  পরে  একটা new  page খুলবে, সেখানে  আপনাকে নিজের Details  দিতে  হবে।

যেমনঃ-

১। নিজের  নাম  and sure name  দিতে  হবে।

২।  “First name” এবং “last name” এর জায়গায় আপনি নিজের প্রথম এবং শেষ নাম লিখুন।

৩। “Username” এর জায়গায় নিজের নতুন জি-মেইল আইডি লিখুন এখানে User name এ আপনি নাম এবং number দুটো  মিলিয়ে  দিতে  পারবেন। user name এ এমন নাম use করবেন, যে নাম  আগে  কেও  use করেনি।

৪। Password: এখানে  আপনাকে password দিতে  হবে। password দেওয়ায় পরে  নিচে  repeat password  এ আবার same password দিতে  হবে।

৫। Password দেওয়ার পরে “your birthday” অপশনে গিয়ে নিজের জন্ম দিন ও তারিখ দেন।

৬। তারপরে  আপনাকে Gender select করতে হবে, male অথবা  female gender select করতে  হবে।

৭। mobile number দিতে  হবে।

৮। Email, আপনার যদি   পুরনো  email থাকে  , তবে  দিতে  পারেন।

৯। আবার  যে শব্দ  লিখে  verify করার  option থাকবে  সেটা  লিখতে হবে।

১০। Location, নিজের  country name দিতে হবে ।

১১ । Next gmail এর  term  and condition এ টিক  করবে।

১২। টিক দেওয়ার  পরে  next step এ click করতে হবে।

স্টেপ-৩  

Next step click করার  পরে  আবার  একটা  নতুন  page খুলবে  সেখানে আপনাকে  mobile number verify করতে হবে। দুটি  option থাকবে  একটা  SMS আর  একটা  call option,  তার মধ্যে যেকোনো একটি  option select করে  continue button এ click করবেন।

স্টেপ-৪

Continue করার  পরে একটা নতুন page খুলবে , সেখানে আপনার  mobile number এ একটা verification  code আসবে সেই code box  লিখে  Continue button এ click করতে  হবে।

স্টেপ-৫

এখন মোবাইল নাম্বার verify করার পর, পরের স্টেপ হবে google terms & conditions পেজটি accept (গ্রহণ) করতে হবে। Terms এবং conditions গ্রহণ করার জন্য যেই privacy &  terms পেজ আপনি দেখছেন তার নিচে “I agree” লিংকে ক্লিক করুন। I agree তে ক্লিক করলে গুগল privacy এবং terms আপনার দ্বারা গ্রহণ হয়ে যাবে।

স্টেপ-৬

Google privacy and terms গ্রহণ করার পর আপনি “Get more from  your number” বলে একটি পেজ দেখতে পারেন। এখানে, গুগল অথবা জি-মেইল আপনাকে গুগলের অন্য সেবা গুলির জন্য আপনার মোবাইল নম্বর ব্যবহার করার কথা বলবে। যেমন, গুগলের ভিডিও কল সেবা। তো, যিহেতু আপনি নিজের ইমেইল আইডি বানাতে চান তাই, নিচে “skip” লিংকে ক্লিক করুন।

স্টেপ-৭

অভিনন্দন, এখন আপনার একটি জি-মেইল একাউন্ট তৈরি হয়ে গেছে। এখন আপনি নিজের বানানো ই-মেইল আইডি দিয়ে অন্য মেইল আইডিতে ই-মেইল পাঠাতে পারবেন এবং অন্যকেও আপনার জি-মেইল আইডিতে মেইল পাঠাতে পারবে। অবশই নিজের ই-মেইল আইডি এবং পাসওয়ার্ড মনে রাখবেন। ই-মেইল আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে আপনি যেকোনো মোবাইল বা কম্পিউটার থেকে নিজের জি-মেইল একাউন্ট খুলতে, মেইল পড়তে বা মেইল পাঠাতে পারবেন। মনে রাখবেন কোন ক্রমেই ই-মেইলের পাসওয়ার্ড কাউকে বলবেন না।

ধন্যবাদ সবাইকে, এভাবেই একটি নতুন জি-মেইল একাউন্ট খোলা যায়।  আশাকরি উপরের লেখাটি আপনাদের উপকারে আসবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *